ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে?

স্বাগতম আপনাকে ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে লেখা তথ্য বহুল আর্টিকেলটিতে। আপনি যদি ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে এই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান তাহলে OurBD এর এই আর্টিকেল আপনাকে অনেখানি সহায়তা করতে পারবে।

ভোটার আইডি কার্ডের নাম ভুল (নিজের/ পিতা/ মাতা) হলে আমরা অনেক ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হই। এতে করে আমাদের যত দ্রুত সম্ভব নাম পরিবর্তন বা সংশোধন করে নেওয়া লাগে। কিন্তু, ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে তা আমাদের অনেকের কাছে অজানা। এই অজানা তথ্য পেতে আমাদের নির্বাচন কমিশনারে গিয়ে জেনে আসতে হয়। তবে এই আর্টিকেলটি থেকে সহজেই এই তথ্য সম্পর্কে জানতে পারবেন।

তাহলে চলুন ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে সেই সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে

ভোটার আইডি কার্ড অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। যদি আপনার বাংলাদেশ নাগরিত্বের পরিচয় বহন করে। তাই ভোটার আইডি কার্ড এর নাম পরিবর্তন/ সংশোধন করা একটি সেনসেটিভ (Sensetive) বিষয়। এটি একটু জটিল ও প্রক্রিয়াধীন বিষয়। তবে এটি অতটাও জটিল বিষয় নয় যতটা আমরা মনে করে থাকি।

আমাদের যদি সকল ডকুমেন্ট ঠিক ঠাক থাকেন তাহলে অনেক সহজেই ভোটার আইডি কার্ডে ভুল থাকা নাম সংশোধন করে নিতে পারব।

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে আমাদের ৪ টি প্রধান ডকুমেন্টের প্রয়োজন পড়বে। এগুলো হলোঃ

  1. অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ – জন্ম নিবন্ধন সনদটি অবশ্যই ডিজিটাল কপির হতে হবে। যদি ডিজিটাল কপি না থাকে তাহলে তা ডিজিটাল করে নিতে হবে।
  2. পি.এস.সি/ জে.এস.সি/এস.এস.সি বা সমমান পরীক্ষার সনদ – অবশ্যই কোন না কোন বোর্ড পরীক্ষার সনদ প্রয়োজন পড়বে। এটি যদি আপনার থাকে তাহলে অনেক সহজেই ভোটার আইডি কার্ড ভুল থাকা নাম সংশোধন করে নিতে পারবেন। না থাকলে আপনাকে একটু ঝামেলার মধ্যে পড়তে হবে।
  3. পাসপোর্ট/ ড্রাইভিং লাইসেন্স/ নিকাহ্ নামা/ এমপিওসিট/সার্ভিস বহি – প্রয়োজন সাপেক্ষে এ ডকুমেন্টের লাগতে পারে। তবে যদি এই ডকুমেন্টের মধ্যে কোন একটি থাকে তাহলে তা অবশ্যই নাম সংশোধন করার আবেদন পত্রের সাথে জমা দিতে হবে। না থাকলে প্রয়োজন পড়বে না।
  4. চাকুরীজীবিদের ক্ষেত্রে অফিস প্রধানের প্রত্যয়ন – যদি আপনি একজন চাকুরীজীবী হন তাহলে অবশ্যই অফিস প্রধানের প্রত্যইয়ন পত্র লাগবে এবং তা আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

এগুলো ছিল মূল কিছু ডকুমেন্ট যা ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে লাগে। এসব ছাড়াও আরো কিছু ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন পড়তে পারে ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধনের জন্য। এগুলো হলোঃ

  1. নাগরিক সনদ পত্র – এটি আপনাকে আপনার এলাকার কাউন্সিলার অফিস থেকে সংগ্রহ করতে হবে।
  2. কলেজ/ বিশ্ববিদ্যালয় প্রত্যয়ন পত্র – কোন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত থাকলে সেই কলেজ/ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকে এটি সংরক্ষণ করতে হবে।
  3. পিতা মাতার ভোটার আইডি কার্ড – এটিও প্রয়োজন পড়তে পারে।

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে এই ছিল তার তথ্য। এগুলো তোও আমরা জেনে নিলাম এবার চলুন ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন করার ফি সম্পর্কেও জেনে নেই।

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন ফি

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে এগুলো জানার পাশাপাশি এর সরকারী ফি কত তা জেনে নেওয়া আপনার কর্তব্য। নিম্নে এই তালিকাটি দিয়ে দিলাম।

সেবার নামফি
ভোটার আইডি নাম সংশোধন প্রথম বারফি ২০০ টাকা এবং ভ্যাট ৩০ টাকা
ভোটার আইডি নাম সংশোধন দ্বিতীয় বারফি ৩০০ টাকা এবং ভ্যাট ৪৫ টাকা
ভোটার আইডি নাম সংশোধন তৃতীয় বারফি ৫০০ টাকা এবং ভ্যাট ৭৫ টাকা

ভোটার আইডি কার্ড নাম কিভাবে সংশোধন করব

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে, ভোটার ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন ফি তো জেনে নিলাম। এবার চলুন ভোটার আইডি কার্ডের নাম কিভাবে সংশোধন করা যায় সেই সম্পর্কেও সংক্ষিপ্ত জেনে নেই।

ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন করার জন্য আপনাকে এই আর্টিকেলে উল্লেখ থাকা ডকুমেন্টের ফটোকপি নিয়ে নির্বাচন কমিশনার অফিসে যেতে হবে। সেখান থেকে নাম সংশোধন করার আবেদন পত্র নিয়ে তা পূরণ করে আপনার ডকুমেন্টগুলো সাথে পিন মেরে জমা দিতে হবে। আপনার সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন করার প্রক্রিয়া চলমান থাকবে এবং কিছুদিনের মধ্য নাম সংশোধন হয়ে যাবে।

এছাড়াও নির্বাচন কমিশনার ওয়েবসাইট – https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/ এর মাধ্যমেও আপনি ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন করার আবেদন করতে পারবেন।

উপসংহার

অনেকেই ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধন বস অন্যান্য তথ্য সংশোধন করাকে জটিল প্রক্রিয়া মনে করে থাকেন। কিন্তু এটি মোটেও কোন জটিল প্রক্রিয়া নয়। আপনার যদি সকল ডকুমেন্ট ঠিক থাকে তাহলে ভোটার আইডি কার্ডের যে কোন তথ্য অনায়েসে সংশোধন করে ফেলতে পারবেন।

এই ছিল ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে কি কি লাগে তা নিয়ে আর্টিকেল। আশা করছি আর্টিকেলটি আপনার উপকারে আসবে। যদি আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ডের নাম বা যেকোন তথ্য সংশোধন করতে চান তাহলে এখনি আপনার এলাকার নির্বাচন কমিশনার অফিসে যোগাযোগ করুন অথবা অনলাইনে আবেদন করুন।

Leave a Comment